Bata India-এর সঙ্গে জুতোর ব্যবসায় লাখ লাখ টাকা রোজগারের সুযোগ, জানুন বিস্তারিত

বাটা-সু (Bata shoes) প্রাইভেট লিমিটেড কোম্পানিটি 1931 সালে ভারতে প্রতিষ্ঠা করেন। আজ কোম্পানিটি ভারতের ঘরে ঘরে পৌঁছে গিয়েছে এবং কোম্পানিটি ভারতের বৃহত্তম জুতো প্রস্তুতকারকও বটে। এটি ভারতবর্ষের প্রথম জুতো ব্যবসার উৎপাদন কারখানা, যা ISO:9001 -এ স্বীকৃতি পেয়েছিল। এখন কম্পানিটি শুধু ভারতেই নয়, ভারতের পাশাপাশি ভারতের বাইরেও গ্রাহকের নেটওয়ার্ক তৈরি করেছে। 5000 টিরও বেশি ভারতের বাইরে এই কোম্পানির রপ্তানিকারক কেন্দ্র রয়েছে।

এই ব্যান্ডের সাথে একাংশ জুড়ে থাকা অতো সহজ ব্যাপার না। তবে কালকের দিনে যারা এই ব্যান্ডের সাথে একতরফা জুড়ে ছিল আজকের দিনে তারা লাখোপতি। আপনি যদি এই বাটা কোম্পানির ফ্র্যাঞ্চাইজি খুলতে চান তাহলে আজকের প্রতিবেদনটি আপনার জন্য। আসুন জানি:

কেন বাটা কোম্পানি?
• বাটা-র নতুন স্টোর, যার মধ্যে বিভিন্ন ধরনের নিত্য নতুন আইটেম রয়েছে এবং এই স্টাইলিশ যুগে গ্রাহকদের কথা মাথায় রেখে নিত্যনতুন ডিজাইনের পণ্য তৈরি করা হয়।
• কোম্পানিটি ৩০ হাজারেরও বেশি ডিলারশিপ এর মাধ্যমে কোটি কোটি গ্রাহকের কাছে পণ্য পৌঁছে দিতে কাজ করে। এবং পাইকারি খাতের মাধ্যমে এক বিশাল নেটওয়ার্ক পরিবেশন করে।
• প্রতিদিন এক মিলিয়ন গ্রাহককে পরিষেবা দেয়ার সক্ষমতা রাখে এই কোম্পানি।
• এই কোম্পানি ৫০ হাজারেরও বেশি কর্মীকে নিযুক্ত করেছেন।
• 70 টিরও বেশি দেশে এর খুজরো উপস্থিতি রয়েছে।
• 20 টি দেশে 27 টি উৎপাদন সুবিধা রয়েছে।

বাটার আইটেম:-
বলা যেতে পারে এই কোম্পানির এমন কোনো আইটেম থাকেনা যে প্রস্তুত হয় না। এখানে সব ধরনের যেমন- স্যান্ডেল, সক, জুতো, কেডস, বাচ্চাদের পাদুকা, মহিলা ও পুরুষদের জুতো, আরও বিভিন্ন ধরনের জুতো তো আছেই।

Bata India

বাটা ফ্র্যাঞ্চাইজির বিবরণ:-
বাটা ফ্র্যাঞ্চাইজির জন্য প্রধান রাস্তার ধারে একটি দোকানের প্রয়োজন। যাতে করে কোম্পানির সাথে যোগাযোগের ক্ষেত্রে কোন অসুবিধা না হয়। এছাড়া এই ব্যান্ডের সাথে এক তরফা ব্যবসা করতে গেলে একটি বড় ধরনের ইনভেস্ট করতে হয়। বাটা ফ্র্যাঞ্চাইজি খোলার জন্য INR 30 লক্ষ থেকে INR 50 লক্ষ পর্যন্ত বিনিয়োগ করতে হতে পারে। তবে এই ইনভেস্ট রিটার্ন করা হয়, সেটা ফ্র্যাঞ্চাইজির পারফরম্যান্সের পরিমাপের উপর নির্ভর করে। আপনি আপনার বিনিয়োগের কত টাকা ফেরত পাবেন? সেটা হলো পাবনার বিক্রয় বা পরিষেবার 45% পর্যন্ত হতে পারে।

চুক্তি ও মেয়াদ:-
যদি কোন ব্যক্তি এই কোম্পানির অংশ হতে চায় তাহলে আবেদনকারীকে একটি সমঝোতা স্মারক (MOU) স্বাক্ষর করার জন্য আমন্ত্রণ জানানো হয়। ফ্র্যাঞ্চাইজির তিন বছরের ফ্র্যাঞ্চাইজ চুক্তিতে স্বাক্ষর করতে হয়। অবশ্য উদ্যোক্তা অনুমোদন নিশ্চিত করার পরে পুনর্বিকরণ করা যেতে পারে।

আবেদন পদ্ধতি:-
বাটা ফ্র্যাঞ্চাইজি যোগদানে যে ব্যক্তি একটি ফ্র্যাঞ্চাইজি চালানোর আবেগ রয়েছে ও বিনিয়োগ করার মত সামর্থ্য রয়েছে, তারা উদ্যোক্তা হতে পারেন। যদি কোনো উদ্যোগতা বাটা ফ্র্যাঞ্চাইজির প্রতি আগ্রহী হয়ে থাকেন তাহলে অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে যোগাযোগ করতে পারেন।

Leave a Comment