‘হর হর শম্ভু’ গান গেয়ে সোশ্যাল মিডিয়াতে ভাইরাল মুসলিম কন্যা, সম্মান পেলেন গায়িকা

কয়েকজন মুসলিম সংগঠনের সদস্য তার গানের বিরোধিতা করলেও বেশ কয়েকটি সংগঠন তার পাশে দাঁড়িয়েছে

হর হর শম্ভু গানটি করে কিছুদিন আগে সোশ্যাল মিডিয়াতে অত্যন্ত জনপ্রিয় হয়ে উঠেছিলেন একজন মুসলিম কন্যা ফরমানি নাজ। সেই সময় বেশ কয়েকটি ইসলামিক সংগঠন এবং মুসলমান ধর্ম গুরু তার বিরোধিতা করলেও এবারে কয়েকজন মুসলমান ধর্ম গুরু এগিয়ে এলেন তার সমর্থনে। উত্তরপ্রদেশের দেওবাদের মুসলিম রাষ্ট্রীয় মঞ্চের কনভেনর রাও মুশারাফ আলি নাজের সমর্থনে বলেছেন, এই মুসলিম কন্যার ভজন সংগীতকে তারা সমর্থন করেন এবং মুসলিম রাষ্ট্রীয় মঞ্চের তরফ থেকে খুব শীঘ্রই তাকে সম্মানিত করা হবে।

সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের সঙ্গে কথা বলার সময় মোশারফ আলী বললেন, ‘ ফরমানি নাজের গাওয়া এই গানটি আমি শুনেছি এবং আমি তার ওই স্তোত্রপাঠ শুনে অত্যন্ত মুগ্ধ। কয়েকজন মৌলানা আমাদের দেশে কট্টরবাদ ছড়ানোর চেষ্টা করছেন। উলেমার দিনে যখন সারা দেশে গো হত্যা হয় সেই সময় এই মৌলানারা অদ্ভুত একটি ফতোয়া জারি করেন। তাদের জন্যই আজকে ভারতের এই অবস্থা।’ নাজের ব্যাপারে কথা বলতে গিয়ে মোশারফ আলী বললেন, ‘উনি একজন গায়িকা এবং ওনাকে অনেক ধরনের ভজন সংগীত গাইতে হবে। মোহাম্মদ রফি সাহেব ও নিজের জীবনে অনেক ভজন সংগীত গেয়েছেন। তাই তাকে কটাক্ষ করা উচিত নয়। মুসলিম রাষ্ট্রীয় মঞ্চের তরফ থেকে ওই গায়িকাকে খুব শীঘ্রই সম্মানিত করা হবে।’

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এই মুহূর্তে সোশ্যাল মিডিয়াতে অত্যন্ত জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে ফরমানি নাজের গাওয়া এই হর হর শম্ভু গানটি। তিনি আদতে উত্তরপ্রদেশের মুজাফফরনগর বাসিন্দা এবং তার ইউটিউব চ্যানেলে তিনি এই গানটি আপলোড করেছিলেন। এই গানটি সোশ্যাল মিডিয়াতে ভাইরাল হওয়ার পরেই বেশ কিছু মুসলিম সংগঠনের তরফ থেকে তার বিরোধিতা করা হয়। দেওবন্দের উলেমা নাজের এই ভজন গানটি সম্বন্ধে বক্তব্য রাখতে গিয়ে বলেন এটি শরীয়ত নিয়মের বিরোধী। এই কারণে তার শাস্তি প্রাপ্য।

যদিও নাজ বলছেন, তিনি একজন সংগীতশিল্পী এবং একজন সংগীত শিল্পীকে নানা ধরনের গান নিজের জীবনে গাইতে হয়। এই মুহূর্তে শ্রাবণ মাস চলছে এবং এই কারণে হর হর শম্ভু গানটি করে তিনি নিজের ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করেছিলেন। কয়েকজন এমন ব্যক্তিত্ব রয়েছেন যারা এই গান শুনে অত্যন্ত ক্রুদ্ধ হয়েছেন। তবে তাদের উদ্দেশ্যে এই সঙ্গীত শিল্পীর বক্তব্য, আজকের দিনে মেয়েরাও আত্মনির্ভর হয়ে সমাজে কিছু করতে এগিয়ে আসছে। নিজের ট্যালেন্টের জোরে সমাজে জনপ্রিয়তা পাচ্ছেন। তাই এই নিয়ে কারোর কোন সমস্যা থাকার কথা নয়। নাজ বলছেন, তিনি নিজে একটি ভক্তিগীতি চ্যানেলও চালান, যেখানে তিনি ভক্তি গীত গিয়ে থাকেন এবং রাধাকৃষ্ণকে নিয়েও অনেক গান গেয়ে থাকেন। কখনো কোন ধর্মের অসম্মান করার কথা তিনি ভাবতেও পারেন না।

Leave a Comment